কম্পিউটার নলেজটেক নলেজ

মাইক্রোসফট ওয়ার্ড এর দরকারী সকল শর্টকাট গুলো জেনে নিন

মাইক্রোসফট ওয়ার্ড এর দরকারী সকল শর্টকার্ট সমূুহ জানুন, microsoft word shortcut keys

আমরা যারা মাইক্রোসফট ওয়ার্ড এর কাজ করে থাকি আমাদের জন্য মাইক্রোসফটওয়ার্ড এর মধ্যে কাজ করার সময় মাউজ ছাড়া খুবই তাড়াতাড়ি শর্টকাটে কিভাবে কাজ করা যায় তা নিয়ে আজকের এই পোষ্টটি। এই লেখাটি পড়লে আপনারা জানতে পারবেন মাইক্রোসফট ওয়ার্ড এর যত প্রয়োজনীয় শর্টকাট গুলো রয়েছে সে সম্পর্কে।

আশা করি পোষ্টটি ভাল লাগবে কারন আমাদের সবারই মাইক্রোসফট ওয়ার্ড এর কাজ করতে হয় আর এই কাজ করার সময় আমাদের কাজ কাজের গতি বাড়াতে ও সময় বাচাতে এবং কাজকে ভাল লাগাতে শর্টকাট ব্যবহার করতে হয়।

নিম্নে এমএস ওয়ার্ড এর শর্টকাট গুলো তুলে ধরা হলোঃ-

প্রথমে দেখাবো প্রয়োজনীয় বিভিন্ন সিম্বলের জন্য কিভাবে শর্টকাট ব্যবহার করতে হয় A থেকে Z পর্যন্ত

Ctrl + A = সব লেখা সিলেক্ট করা।

Ctrl + B = লেখা বোল্ড করা।

Ctrl + C = কোন লেখা কপি করা।

Ctrl + D = ফন্ট পরিবর্তনের জন্য অপশন বক্স পাওয়া।

Ctrl + E = লেখাকে মাঝখানে নেওয়া, সেন্টার এলাইনমেন্ট করা।

Ctrl + F = কোন শব্দ খুঁজা।

Ctrl + G = কমান্ড ব্যবহার করে সুবিধা পাওয়া।  

Ctrl + H = কোন শব্দের পরিবর্তে অন্য শব্দ দেওয়া।

Ctrl + I = লেখাকে ইটালিক করা, মানে লেখাকে বাকা ভাবে প্রদর্শন করা।

Ctrl + J = লেখাকে জাস্টিফাই করা, মানে লেখার লাইনকে সব দিক থেকে সমান করা।

Ctrl + K = হাইপারলিংক তৈরী করা, মানে কোন পেইজ বা অন্যকিছু লিংক আকারে রাখা।

Ctrl + L = টেক্সট লেফট এলাইনমেন্ট করা।

Ctrl + M = ইনডেন্ট করা, মানে লেখাকে সরানোর কাজ মার্জিন থেকে।  

Ctrl + N = নতুন কোন ডকুমেন্ট ফাইল খোলা।  

Ctrl + O = আগের কোন ডকুমেন্ট ফাইল ওপেন করা।

Ctrl + P = ওয়ার্ডের ডকুমেন্ট প্রিন্ট দেওয়া।  

Ctrl + Q = প্যারাগ্রাফে লাইন স্পেস তৈরি করা।

Ctrl + R = লেখাকে বাম দিকে সরানো, রাইট এলাইনমেন্ট করা।

Ctrl + S = ডকুমেন্ট ফাইল সেভ করা।  

Ctrl + T = লেফট ইনডেন্ট, লেখাকে মার্জিন থেকে সরানো।

Ctrl + U = লেখার নিচে আন্ডারলাইন দেওয়া।  

Ctrl + V = লেখাকে পেষ্ট করা।  

Ctrl + W = ডকুমেন্ট ফাইল বন্ধ করা।  

Ctrl + X = কোন লেখাকে কাট করে নিয়ে যাওয়া।  

Ctrl + Y = রিপিট করে পূর্বের স্থানে ফিরে যাওয়া।

Ctrl + Z = আন্ড করা, কোন লেখা মুছে গেলে সাথে সাথে ফিরে পাওয়া।

দ্বিতীয়তো দেখাবো প্রয়োজনীয় বিভিন্ন সিম্বলের জন্য কিভাবে শর্টকাট ব্যবহার করতে হয়-

Alt + 0215 = × (গুণ চিহ্ন)

Alt + 0247 = ÷ (ভাগ চিহ্ন)

Alt + 0169 = © (কপিরাইট চিহ্ন)

Alt + 171 = ½ (হাফ চিহ্ন)

Alt + 172 = ¼ (চার ভাগের এক ভাগ)

Alt + 0190 = ¾ (চার ভাগের তিন ভাগ)

Alt + 0171 = « (লেফট ডাবল পয়েন্টিং)

Alt + 0187 = » (রাইট ডাবল পয়েন্টিং)

Alt + 25 = ↓ (নিচের দিকের এরো)

Alt + 26 = → (রাইট দিকের এরো)

Alt + 27 = ← (লেফট দিকের এরো)

Alt + 29 = ↔ (দুই পাশের এরো)

Alt + 0174 = ® (রেজিষ্টার্ট চিহ্ন)

Alt + 0146 = ’ (উপর রাইট দিকের একটি কমার চিহ্ন)

Alt + 0145 = ‘ (উপর লেফট দিকের একটি কমার চিহ্ন)

Alt + 0148 = ” (উপর রাইট দিকের দুটি কমার চিহ্ন)

Alt + 0147 = “(উপর লেফট দিকের দুটি কমার চিহ্ন)

Alt + 0139 = ‹ (লেফট পয়েন্টিং)

Alt + 0155 = › (রাইট পয়েন্টিং)

Alt + 0133 = … (থ্রি ডট বা হরিজনটাল ইলিপসিস)

Alt + 146 = Æ (লাতিন লেটার)

আশা করি উপরে দেখানো মাইক্রোসফট ওয়ার্ড ফাইলের বিভিন্ন শর্টকাট সমূহ জানার মাধ্যমে আপনার কাজের আরো দক্ষতা বৃদ্ধি পাবে এবং বিভিন্ন সিম্বল তৈরির শর্টকাট গুলোও কাজের ক্ষেত্রে অনেকাংশে দরকার পরবে যা জানার মাধ্যমে আপনার কাজের আরো অগ্রগতি বাড়বে।

লেখাটি পড়ার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ।

আরো জানুন-

Quick Bangla

এই ওয়েবসাইটে সবচাইতে প্রাধান্য দেওয়া হয় টেক বিষয় গুলোকে তবে পাশাপাশি অন্যান্য প্রয়োজনীয় বাংলা ব্লগ বিষয়ও পেয়ে যাবেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button